রিয়েলমি সি-২১ এখন তৈরি হচ্ছে বাংলাদেশেও!

রিয়েলমি সি-২১ এখন তৈরি হচ্ছে বাংলাদেশেও!

রিয়েলমির পণ্যগুলো দেশে সেমি নকড-ডাউন (এসকেডি) পদ্ধতিতে অ্যাসেম্বল করা হলেও রিয়েলমি সি-২১ তাদের প্রথম স্মার্টফোন যেটি সম্পূর্ণ নকড-ডাউন (সিকেডি) প্রক্রিয়া অনুসরণ করে দেশে তৈরি করা হয়েছে

রিয়েলমি বর্তমান সময়ের অন্যতম দ্রুত বর্ধনশীল স্মার্টফোন কোম্পানি। সম্প্রতি রিয়েলমি বাংলাদেশে অবস্থিত তাদের কারখানায় স্থানীয়ভাবে স্মার্টফোন তৈরি শুরু করেছে। রিয়েলমি সি-২১ ফোনটি ‘মেড ইন বাংলাদেশ’ হিসেবে বাজারজাত শুরু করছে কোম্পানিটি।

গত বছরের ফেব্রুয়ারি বাংলাদেশে রিয়েলমির আনুষ্ঠানিক কার্যক্রম শুরু হয়। মূলত তাদের পণ্যগুলো দেশে সেমি নকড-ডাউন (এসকেডি) পদ্ধতিতে অ্যাসেম্বল করা হয়। কিন্তু রিয়েলমি সি-২১ তাদের প্রথম স্মার্টফোন যেটি সম্পূর্ণ নকড-ডাউন (সিকেডি) প্রক্রিয়া অনুসরণ করে দেশে তৈরি করা হয়েছে।

সি-২১ মডেলটি হলো রিয়েলমির প্রথম এন্ট্রি-লেভেল অলরাউন্ডার ফোন, যা টিইউভি রাইনল্যান্ড হাই রিলায়েবিলিটি কোয়ালিটি সনদপ্রাপ্ত। টিইউভি রাইনল্যান্ড স্মার্টফোন হাই-রিলায়েবিলিটি সার্টিফিকেশন প্রক্রিয়া ২৩টি পরীক্ষার মাধ্যমে সম্পন্ন হয়। এর মধ্যে আছে ড্রপ, ওয়ার ও টিয়ারের মতো ১০টি দৈনিক ব্যবহৃত নিরীক্ষা, চরম তাপমাত্রা, চরম আর্দ্রতা, ভোল্টেজের ওঠানামা, বাটন লাইফ, স্ট্যাটিক বিদ্যুৎ, বায়ুচাপসহ ৭টি চরম পরিবেশ নিরীক্ষা, এবং ৬টি উপাদান নির্ভরযোগ্যতা নিরীক্ষা। আট মাস ধরে গবেষণা এবং পরীক্ষার পরে টিইউভি রাইনল্যান্ড ও রিয়েলমি যৌথভাবে টিইউভি রাইনল্যান্ড স্মার্টফোন হাই-রিলায়েবিলিটি সার্টিফিকেশন তৈরি করে।

রিয়েলমির সি-২১ মডেলের স্মার্টফোনটিতে রয়েছে ৫০০০ মিলি অ্যাম্পিয়ারের শক্তিশালী ব্যাটারি, যা রিভার্স চার্জিংকে সমর্থন করে। হেলিও জি৩৫ ১২ ন্যানোমিটার অক্টা-কোর ৬৪ বিটস প্রসেসর সমৃদ্ধ এ স্মার্টফোনে আছে ১৩ মেগাপিক্সেলের এআই ট্রিপল ক্যামেরা এবং তাৎক্ষণিক ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর। এর ১৩ মেগাপিক্সেলের ইমেজ সেন্সর সম্বলিত প্রাইমারি ক্যামেরার সাথে আছে এফ/২.২ এর বড় অ্যাপারচার, যার মাধ্যমে স্বল্প আলোতেও পরিষ্কার ও উজ্জ্বল ছবি তোলা সম্ভব। তাছাড়া, এটি পিডিএএফ সমর্থিত যা ছবির ফোকাসকে আরও দ্রুত ও সুনির্দিষ্ট করে তোলে। এই ফোনের ৫ মেগাপিক্সেল ফ্রন্ট ক্যামেরার সাহায্যে নিখুঁত সেলফি তোলা যায়।

দুটি ভ্যারিয়েন্টে রিয়েলমি সি-২১ বাজারে পাওয়া যাচ্ছে। এর ৩-৩২ জিবি ভ্যারিয়েন্টটির বাজারমূল্য ১০ হাজার ৯৯০ টাকা এবং ৪+৬৪ জিবি ভ্যারিয়েন্টটির বাজারমূল্য ১১ হাজার ৯৯০ টাকা।

এছাড়া, আগামী ৩ বছরের মধ্যে তরুণদের হাতে ১০ কোটি ৫জি স্মার্টফোন পৌঁছে দেয়ার উদ্দেশ্যে ৫জি পণ্যের এক বিস্তৃত পোর্টফলিও তৈরির কাজ করছে রিয়েলমি।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *