মানবিক সহায়তায় বিদ্যানন্দের সঙ্গে চুক্তি করলো বাংলালিংক

চলমান মহামারি, অর্থনৈতিক সংকট ও প্রাকৃতিক দুর্যোগে ক্ষতিগ্রস্ত ১০,০০০ পরিবারকে ত্রাণ সহায়তা দিতে বিদ্যানন্দ ফাউন্ডেশন-এর সাথে সমঝোতা চুক্তি স্বাক্ষর করেছে বাংলালিংক। দেশের বিভিন্ন প্রান্তে ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারগুলির মাঝে ত্রাণ বিতরণ করতে বাংলালিংক-কে সহযোগিতা করবে বিদ্যানন্দ ফাউন্ডেশন।

অনলাইনে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে বাংলালিংক-এর চিফ কর্পোরেট অ্যান্ড রেগুলেটরি অ্যাফেয়ার্স অফিসার তাইমুর রহমান ও বিদ্যানন্দ ফাউন্ডেশন-এর ফাউন্ডার ও চেয়ারম্যান কিশোর কুমার দাশ নিজ নিজ প্রতিষ্ঠানের পক্ষ থেকে এই সমঝোতা চুক্তিতে স্বাক্ষর করেন।

বাংলালিংক-এর চিফ এথিক্স অ্যান্ড কমপ্ল্যায়ান্স অফিসার মুনিরুজ্জামান শেখ ও হেড অফ কর্পোরেট কমিউনিকেশনস অ্যান্ড সাস্টিনিবিলিটি আংকিত সুরেকা চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠানে যুক্ত ছিলেন।

কার্যক্রমটির প্রথম ধাপ চলতি মাসে ও দ্বিতীয় ধাপ আগামী সেপ্টেম্বর ও অক্টোবর মাসে পরিচালিত হবে। প্রতিটি ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারকে চাল, ডাল, তেল, সুজি, চিনি, লবণ, বার সাবান এবং খাবার স্যালাইন দেওয়া হবে বাংলালিংক-এর পক্ষ থেকে।
বাংলালিংক-এর চিফ কর্পোরেট অ্যান্ড রেগুলেটরি অ্যাফেয়ার্স অফিসার তাইমুর রহমান বলেন, “সামাজিকভাবে দায়বদ্ধ একটি প্রতিষ্ঠান হিসেবে মহামারি, অর্থনৈতিক সংকট ও প্রাকৃতিক দুর্যোগের কারণে ক্ষতিগ্রস্ত হাজার হাজার পরিবারের দিকে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দেওয়া আমাদের কর্তব্য। এবার আমরা বিদ্যানন্দ ফাউন্ডেশন-এর সহযোগিতায় ১০,০০০ ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের কাছে সাহায্য নিয়ে পৌঁছাতে চাই। ত্রাণ কার্যক্রমের মাধ্যমে ক্ষতিগ্রস্ত জনগোষ্ঠীকে প্রতিকূল পরিস্থিতি মোকাবেলায় সাহায্য করে যাবো আমরা।”

বিদ্যানন্দ ফাউন্ডেশন-এর ফাউন্ডার ও চেয়ারম্যান কিশোর কুমার দাশ বলেন, “আমরা যদি সম্মিলিতভাবে ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারগুলিকে সহায়তা করি, তাহলে তাদের জন্য এই পরিস্থিতি থেকে ঘুরে দাঁড়িয়ে আবার স্বাভাবিক জীবনযাত্রা শুরু করা সহজ হবে। সম্মিলিত উদ্যোগ কীভাবে তাদের সমস্যা দূর করার ক্ষেত্রে ভূমিকা রাখতে পারে, তা আমাদের এই অংশীদারিত্বের মাধ্যমে প্রতিফলিত হবে। আমরা বিশ্বাস করি, এই উদ্যোগ আরও অনেক প্রতিষ্ঠানকে এই লক্ষ্যে এগিয়ে আসতে উদ্বুদ্ধ করবে।”

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *